গতকাল ৭ জুলাই শেরপুরের মাধবপূরে অবস্থিত ফ্যামিলি নার্সিং হোমে জোড়া মাথার দুই শিশুর জন্ম হয় । শহরের চাপাতলী এলাকার রিকশাচালক রুবেল মিয়ার স্ত্রী রেহেনা বেগম (২১) মাথা জোড়া লাগা ওই যজম কন্যা শিশুদের জন্ম দেন।

শেরপুরের সিনিয়র গাইনী বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আব্দুল গণি সিজারের মাধ্যমে তাদের ভূমিষ্ট করাতে সক্ষম হন। তাদের মা কিছুটা সুস্থ হলেই উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হবে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

পরিবার জানায়, কিছুদিন আগে জমজ শিশুর মা’কে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তার গর্ভে মাথা জোড়া লাগা শিশু রয়েছে জানতে পেরে সেখানকার চিকিৎসকরা তাকে চিকিৎসা দিতে গড়িমসি করেন। পরে তার বাবা আমিনুল ইসলাম মেয়েকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ফেরত এনে শেরপুরের ফ্যামিলি নার্সিং হোমে ভর্তি করালে বিস্তারিত জেনে ওই নার্সিং হোমের স্বত্বাধিকারী জেলা বিএমএ সভাপতি ডা. এম এ বারেক তোতা ওই নারীর সিজারিয়ান অপারেশন করানোর প্রস্তুতি নেন। পরে গাইনী বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আব্দুল গণি সিজারের মাধ্যমে সফলভাবে তাদের ভূমিষ্ট করান।

ফ্যামিলি নার্সিং হোমের পরিচালক ডা. বুশরা আমেনা জানান, ওই যমজ শিশুর মার শারীরিক অবস্থা খুব ভালো নয়। দরিদ্র পরিবার। তাই এ মুহূর্তে তারা উন্নত চিকিৎসার জন্য বাইরে যেতে পারছে না। মা সুস্থ হলেই তাদের ঢাকায় পাঠানো হবে।

Facebook Comments
bdwebhost24.com