শ্রীবরদীতে আদিবাসী নারীকে ধর্ষণ, গ্রেফতার-১

শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার রাণীশিমূল ইউনিয়নের খাড়ামোড়া গ্রামে ৩ সন্তানের জননী আদিবাসী নারীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ।
জানা যায়,  ৭ নভেম্বর বুধবার গভীর রাতে সীমান্তবর্তী রাণীশিমুল ইউনিয়নের খাড়ামোড়া গ্রামের ৩ সন্তানের জননী আদিবাসী নারী তার এক সন্তানকে নিয়ে নিজ বসত ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। রাতে ইরফান ও অজ্ঞাত নামা একজন পুলিশ পরিচয়ে ঘরের দরজা খুলতে বলে। এসময় দরজা খুললে তারা ঘরের ভিতরে ঢুকে ওই আদিবাসি নারীকে ওড়না দিয়ে মুখ ও হাত বেধে জোড় পূর্বক পালাক্রমে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে তার ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে ঘটনা শুনে ইরফানকে খোজাখুজি করে। পরে শুক্রবার সকালে এলাকাবাসী ইরফানকে আটক করে থানায় খবর দেয়। শ্রীবরদী থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ইরফানকে থানায় নিয়ে যায়।

৯ নভেম্বর শুক্রবার রাতে নির্যাতিত আদিবাসী নারী বাদী হয়ে ইরফানসহ অজ্ঞাত একজনকে আসামী করে শ্রীবরদী থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে।

অভিযুক্ত ইরফানের স্ত্রী শাহিনা জানান, পূর্ব বিরোধের জেরে তার স্বামীকে ফাঁসানো হয়েছে।

শ্রীবরদী থানার ওসি (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম ভূইয়া জানান, আদাবাসী নারী ধর্ষনের অভিযোগে একজনকে আটক করা হয়েছে। ধর্ষণের আলামত প্রমাণে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ধর্ষিতাকে শেরপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে ।

bdwebhost24.com
শেয়ার