ভারতে বাংলাদেশী একজন অনুপ্রবেশকারীও থাকতে দেবো না

বাংলাদেশী অভিবাসীদের এবার সরাসরি হুমকি দিলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। তিনি বলেছেন, ভারতে বাংলাদেশী অবৈধ সব অভিবাসীকে সনাক্ত করবে সরকার। এরপর তাদেরকে একজনের পর একজন ফেরত পাঠানো হবে। অবৈধভাবে কাউকে ভারতে বসবাস করতে দেয়া হবে না। মঙ্গলবার তিনি জয়পুরে দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে দেয়া ভাষণে এমন সতর্কতা উচ্চারণ করেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। কেন্দ্রীয় সরকার বাংলাদেশী বহিষ্কারের বিষয়ে মুখ খোলে নি। উল্টো নীতি নির্ধারকদের কেউ কেউ বলেছিলেন, বাংলাদেশীদের বহিষ্কার করা হবে না।
কিন্তু ক্ষমতাসীন বিজেপির জেনারেল সেক্রেটারি ও ভীষণ প্রভাবশালী রাম মাধব বিষয়টি পরিষ্কার করে বলেছেন। তিনি বলেছেন, আসামে প্রণীত এনআরসির বাইরে যারা থাকবেন সেইসব বাংলাদেশীদের বের করে দেয়া হবে। আর এবার মুখ খুললেন স্বয়ং বিজেপি সভাপতি। তিনি প্রকাশ্যে বাংলাদেশী অভিবাসী ইস্যুতে বক্তব্য রাখলেন। জয়পুরের ওই অনুষ্ঠানে তিনি বিরোধী দল কংগ্রেসকে আক্রমণ করে বক্তব্য রাখেন। তিনি এসব অবৈধ অভিবাসীদেরকে কংগ্রেসের ভোটব্যাংক বলে অভিহিত করেন। বলেন, এ জন্যই এসব অভিবাসীর বিষয়ে যতœশীল কংগ্রেস। অমিত শাহ বলেন, তারা (কংগ্রেস) মানবাধিকারের কথা বলে। দেশের নিরাপত্তা নিয়ে তাদের কি কোনো উদ্বেগ নেই? শত শত সন্ত্রাসী ভারতে অনুপ্রবেশ করছে। তারা বোমা হামলার পরিকল্পনা করছে। আপনাদের শাসনকালে এমন অনেক ঘটনা ঘটেছে। অমিত শাহ বলেন, প্রতিটি নির্বাচনেই বিজয়ী হবে বিজেপি। যদিও বিরোধীরা মোহাম্মদ আখলাক হত্যার মতো ইস্যুকে পুনরুজ্জীবিত করার চেষ্টা করবে। উল্লেখ্য, গুরুর মাংস রাখার অভিযোগে উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা আখলাক হোসেনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে তাকে হত্যা করে। তার ছেলেকে মারাত্মক জখম করে। এ ইস্যুকে সামনে এনে অমিত শাহ বলেন, যখন আখলাককান্ড ঘটেছিল আমরা কিন্তু তখনই জিতেছি। আমরা জিতেছি যখন ওয়াপসি ঘটেছে। এখন যদি তারা (বিরোধী) কোনো কিছু করে তাতেও আমরা বিজয়ী হবো। তিনি আসামে এনআরসি ইস্যুতে কংগ্রেসের বিরোধিতা নিয়ে আক্রমণ করেন। অমিত শাহ বলেন, আপনারা যত পারেন বিরোধিতা করেন। বিজেপির দৃষ্টিভঙ্গি হলো, আমরা ভারতে বাংলাদেশী একজন অনুপ্রবেশকারীকে থাকতে দোবো না। আমরা তাদেরকে এক এক করে বের করে দেবো। পরে অমিত শাহ জয়পুরে দলীয় সিনিয়র নেতা ও অধিবাসীদের এক জমায়েতে মিলিত হন সন্ধ্যায়। সেখানে তিনি বলেন, বিজেপি সরকার এনআরসি ইস্যু থেকে পিছু হটবে না। তাদেরকে (বাংলাদেশী) বের করে দেয়ার পর তাদের প্রত্যেকের নাম আমরা তালিকায় রাখবো যাতে তাদেরকে সনাক্ত করা যায়। তিনি আবারও কংগ্রেসের সমালোচনা করেন। বলেন, কংগ্রেস তো এসব বাংলাদেশীদের রক্ষা করার জন্য নতুন উপায় অবলম্বন করেছে। কংগ্রেস বলছে, যদি তাদেরকে ভারত থেকে বের করে দেয়া হয় তাহলে সেখানে হিন্দুদের কি হবে? ভাই, আমাদেরকে আপনারা শিখাতে আসবেন না।
অমিত শাহ আরো বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সিটিজেন অ্যামেন্ডমেন্ট বিল ২০১৬ সামনে এনেছেন। এর আওতায় আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে যেসব হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ ও জৈন ভারতে এসেছেন তারা অনুপ্রবেশকারী নন। তারা আশ্রয়প্রার্থী। তারা আমাদের ভাই। আমরা তাদেরকে নাগরিকত্ব দেবো।

-অনলাইন

Facebook Comments