- Advertisement -spot_img
28.1 C
Sherpur
বাড়িশেরপুর জেলানালিতাবাড়ীনালিতাবাড়ীতে প্রধানমন্ত্রীর উপহার খাসজমিসহ ঘর পেলেন ৫০ দরিদ্র পরিবার

নালিতাবাড়ীতে প্রধানমন্ত্রীর উপহার খাসজমিসহ ঘর পেলেন ৫০ দরিদ্র পরিবার

- Advertisement -spot_img

অভিজিৎ সাহা,নালিতাবাড়ী প্রতিনিধিঃ

‘‘আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ী উপজেলায় ভূমি ও গৃহহীন ৫০ টি পরিবার দ্বিতীয় ধাপে খাসজমিসহ নতুন ঘর পেয়েছে।

সারাদেশে ভিডিও কন্ফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একযোগে ঘরপ্রদান অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন ঘোষনা করেন।

রবিবার(২০ জুন),সকালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে কেক কেটে আনুষ্ঠানিক ভাবে মুজিব বর্ষের উপহার হিসেবে উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে মোট ৫০ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের কাছে খাসভূমি বন্দ্যোবস্ত দিয়ে তার দলিল ও নমুনা চাবি হস্তান্তর করা হয়। 

মুজিববর্ষ উপলক্ষে ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে নালিতাবাড়ী উপজেলার ভূমি ও গৃহহীন এমন পরিবারের মাঝে ২শতাংশ খাস জমি বন্দোবস্ত প্রদাণ পূর্বক প্রতিটি সেমি পাকা বাসগৃহে ব্যয় ১লক্ষ ৯০ হাজার টাকা, উপজেলার ৫০ টি গৃহহীন পরিবারের মাঝে হস্তান্তর করা হয়। ২ শতাংশ খাস জমির বন্দোবস্তসহ ২কক্ষ বিশিষ্ট সেমিপাকা, ইটের দেওয়াল, কনক্রিটের মেঝে, রঙিন টিনের ছাউনি নিয়ে এসব ঘরে ২টি শয়নকক্ষ, প্রতিটি ঘরে ১টি খোলা বারান্দা, ১টি রান্না ঘর ও একটি করে টয়লেট রয়েছে।

ভূমি ও গৃহ প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোকছেদুর রহমান লেবু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হেলেনা পারভীন, পৌর-মেয়র আবু বক্কর সিদ্দিক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউল হোসেন, নালিতাবাড়ী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি বছির আহমদ বাদল, পরিকল্পনা কর্মকর্তা আব্দুল হান্নান সহ উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ। ৷

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হেলেনা পারভীন বলেন, একদম স্বচ্ছতার ভিত্তিতে দ্বিতীয় ধাপে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর পাচ্ছেন ভূমিহীন ও গৃহহীন ৫০ টি পরিবার। এতে প্রতিটি ঘরে ব্যয় হয়েছে এক লাখ ৯০ হাজার টাকা।

উপজেলার নন্নী ইউনিয়নের সুবিধাভোগী মোছাঃ আলেক জান বলেন, বহু বছর আগে জামাই ছাইড়া দিছে।দুই পুলা ও এক মাইয়ারে নিয়া মাইন্সের জায়গায় অনেক কষ্টে দিন কাটাইতাম।অহন নিজের বাড়ি হইলো। পুলাপান নিয়া একটু ভালভাবে বাঁচবার পামু।

- Advertisement -
- Advertisement -

আরও সংবাদ

- Advertisement -

অন্যান্য সংবাদ

- Advertisement -