ইতিমধ্যে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি) সাক্ষাৎকার দিয়েছেন হাই প্রোফাইল দুই কোচ রিচার্ড পাইবাস ও ফিল সিমন্স। তালিকায় নাম রয়েছে প্রোটিয়া সফল কোচ গ্যারি কারস্টেনেরও। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রধান কোচের দায়িত্বে গ্যারি কারস্টেনের সম্ভাবনা কতটা? এমন প্রশ্নে গতকাল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান বলেন, আমরা দলের হেড কোচকে অন্য জায়গায় দিবো না। কারস্টেন এর মধ্যেই আইপিএলে যুক্ত হয়েছেন। সেই দিক দিয়ে চিন্তা করলে সে আমাদের সঙ্গে ফিট করে না। তবে এর বাইরে তাকে নিয়ে কাজ করা হতে পারে।
হয়তো সে বছরে ছয় মাস কাজ করবে। তিনি ফেব্রুয়ারির পরে যদি আসেন, তাহলে এ নিয়ে কথা হবে। সদ্য বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেছেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। তিনি দায়িত্ব নিয়েছেন শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের। আগামী মাসেই পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল। তার আগে নতুন কোচ নিয়োগ দেয়া নিয়ে বিসিবি সভাপতি বলেন, আজও আমরা একটা মেইল পেয়েছি, ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে। সেটা নিয়ে আমরা পরে জানাবো। গ্যারি কারস্টেনের সঙ্গে আমাদের যে কথা হয়েছে, তা হেড কোচ হিসেবে নয়। তার সঙ্গে কথা হয়েছে কনসালটেন্ট হিসেবে এবং শুধু জাতীয় দলের হয়ে নয়, যে সব বিষয়ে কাজ করবে। তবে আগামী ফেব্রুয়ারির আগে তাকে পাওয়া যাবে না। আর আমরা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের আগে একজন ব্যাটিং পরামর্শক নিয়োগ দেয়ার চেষ্টা করছি। তাহলে টাইগাররা একজন হেড কোচ পাবে কবে? নাজমুল হাসান বলেন, আগামী কিছুদিনের মধ্যে কয়েকজন আসবে। দুজনের ইন্টারভিউ হয়ে গেছে। এছাড়া আরো কয়েকজনের সঙ্গে কথা চলছে। যারা বিভিন্ন জায়গায় কাজ করছেন। সেই কাজ শেষ হওয়ার আগে তারা আসতে পারছেন না। এদিকে, আমরা বর্তমান কোচিং স্টাফ এবং খেলোয়াড়দের সঙ্গে আলোচনা করেছি। সামনের যে সিরিজ আছে, সেটার আগেই কোচ নিতে হবে, এমন কোনো তাড়াহুড়া নেই। এটা আগেও বলেছি। এই সিরিজটা নিজেরাই হ্যান্ডল করে নেবো। তবে কোচ নিয়োগের প্রক্রিয়াটা চলছে। এর মধ্যে হয়ে গেলে ভালো।’ ঘরোয়া ক্রিকেটে তারকা খেলোয়াড়দের অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আমাদের আন্তর্জাতিক খেলা এতো বেশি, জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা খুব ব্যস্ত থাকে। ক্লাবগুলো এতো টাকা খরচ করে প্রিমিয়ার লীগ খেলে, তারা চায় জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা খেলুক। আমাদের সূচি আছে, জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের তো পাওয়া যাবে না। প্রিমিয়ার ডিভিশনের সঙ্গে এবার আমরা একটা টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট করবো। এতে অবশ্য দেশের কোথায় কোন প্রতিভা আছে, তার খোঁজ পাওয়া কঠিন। আমরা তাই চিন্তা করেছি সারা বাংলাদেশে একটা টি-টোয়েন্টি লীগ চালু করবো। যে লীগের মাধ্যমে আমরা ভালো ভালো খেলোয়াড় তুলে আনার চেষ্টা করবো। কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের অধীনে আড়াই বছরে টাইগারদের নৈপুণ্যে আমূল পরিবর্তন এসেছে। ২০১৫ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালের পর নিজ মাটিতে টাইগাররা ওয়ানডে সিরিজ জয়ের স্বাদ নেয় পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলের বিপক্ষে। নিজ মাটিতে নেয় অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট জয়ের স্বাদ। নাজমুল হাসান বলেন, ‘আসলে বাংলাদেশ এখন যে পর্যায়ে গেছে সেখানে যে কোনো কোচ আনলে তো হবে না। একটু ভেবে চিন্তে কোচ আনতে হবে। আগেরবারের চেয়ে এখন কোচ নেয়া কঠিন। আগেরবার দল হারের মধ্যে ছিল।
দলে সুযোগ পেতে পারেন শান্ত-আফিফরা
আসন্ন ত্রিদেশীয় আসর ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিপক্ষীয় সিরিজে বাংলাদেশ দলটা কেমন হবে? বিসিবি সভাপতি বলেন, এখন কিন্তু বড় কোনো পরিবর্তন আনা সহজ নয়। হঠাৎ পরিবর্তন আনলে দলের উপর বাজে প্রভাব পড়তে পারে। কিছু খেলোয়াড় তো ফিক্সড, তামিম সাকিব মুশফিক রিয়াদ, এদেরকে বাদ দেয়া যাবে না। আমি কোনো কারণও খুঁজে পাই না। আপনি বোলিংয়েও খুব বেশি পরিবর্তন আনতে পারবেন না। যদি ওয়ানডে হয় মাশরাফিকে বাদ দেয়ার প্রশ্নই উঠে না। একটা দুইটা পেসার নিলে, মোস্তাফিজ তো খেলবেই। তার সঙ্গে কে খেলবে তাসকিন রুবেল না অন্য কেউ? এখানে কিন্তু সুযোগ কম। নতুন কারো জন্য কঠিন। স্পিনারদের মধ্যে মিরাজ, তাইজুল আছে। হয়তো আর একটা নাম ঢুকবে। তবে আমরা মনে করি নতুন একটা দুইটা ছেলে সুযোগ পেতে পারে। যেমন সাইফুদ্দিন কিন্তু ঢুকেছে। রাহী, আফিফ, শান্তরা ভালো খেলছে। তাদের সুযোগ দেয়া যায় কিনা এটা কোচ ও সিলেক্টররা দেখবেন

bdwebhost24.com