İstanbul escort bayan sivas escort samsun escort bayan sakarya escort Muğla escort Mersin escort Escort malatya Escort konya Kocaeli Escort Kayseri Escort izmir escort bayan hatay bayan escort antep Escort bayan eskişehir escort bayan erzurum escort bayan elazığ escort diyarbakır escort escort bayan Çanakkale Bursa Escort bayan Balıkesir escort aydın Escort Antalya Escort ankara bayan escort Adana Escort bayan

18 C
Sherpur
শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪

রুশ জ্বালানি তেল আমদানি ৩৩ গুণ বাড়িয়েছে ভারত

বিশ্বের তৃতীয় বৃহৎ অপরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানিকারক...

বাড়ছে আবারো গ্যাসের দাম

সাত মাসের মাথায় আবারো গ্যাসের দাম বাড়ানোর...

সংসদ উপনেতা হিসেবে মন্ত্রীর পদমর্যাদায় মতিয়া চৌধুরী

গত ১২ জানুয়ারি রাতে সংসদ ভবনে আওয়ামী...

আসামি ধরতে গিয়ে গৃহবধূকে শারিরিক নির্যাতনের অভিযোগ, এসআই প্রত্যাহার

প্রধান প্রধান খবরআসামি ধরতে গিয়ে গৃহবধূকে শারিরিক নির্যাতনের অভিযোগ, এসআই প্রত্যাহার
- Advertisement -
- Advertisement -

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে আসামি ধরতে গিয়ে গৃহবধুর ওপর শারিরিক নির্যাতন ও আলমারি থেকে টাকা, স্বর্ণালংকা এবং মুঠোফোন লুট করার অভিযোগ উঠেছে এক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত সীতাকুণ্ড মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) মাহবুব মোরশেদকে প্রত্যাহার (ক্লোজ) করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।

সোমবার (১৮ এপ্রিল) সীতাকুণ্ড সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. আশরাফুল করিম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে রোববার পুলিশের নির্যাতনের শিকার হওয়া গৃহবধু খালেদা আক্তার চট্টগ্রাম পুলিশ সুপার বরাবরে উপ পরিদর্শক (এসআই) মাহবুব মোরশেদের বিরুদ্ধে মারধর ও টাকা, স্বর্ণালংকার লুটের অভিযোগ আনেন। পাশাপাশি অভিযোগের অনুলিপি সীতাকুণ্ড সার্কেলের অ্যাডিশনাল এসপি ও সীতাকুণ্ড প্রেসক্লাবে জমা দেন।
দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সীতাকুণ্ডের মুরাদপুর ইউনিয়নের মধ্যম ভাটেরখীল এলাকার বাসিন্দা একটি মামলার পরোয়ানাভূক্ত আসামি নুরুল ইসলামকে (৫০) গ্রেপ্তার করতে গত শনিবার দুপুরে তার বাড়িতে যান সীতাকুণ্ড থানার উপ পরিদর্শক (এস.আই) মাহবুব মোর্শেদ। এসময় তার সাথে যান পুলিশ সোর্স মো.নুরুজ্জামানসহ (৪৫) দু’জন পুলিশ সদস্য। সাদা পোশাকে থাকা চারজনের মধ্যে এসআই মাহবুব ও সোর্স নুরুজ্জামান নুরুল ইসলামের ঘরে প্রবেশ করে তাকে না পেয়ে তার স্ত্রী খালেদা আক্তারের কাছে আলমারির চাবি কোথায় জানতে চান। তিনি চাবি দিতে না চাইলে মাহবুব ক্ষিপ্ত হয়ে খালেদাকে উপর্যপুরি লাথি মারেন। শারিরিক নির্যাতন সইতে না পেরে খালেদা চাবি দিলে মাহবুব ও নুরুজ্জামান আলমারিতে থাকা এক লাখ ৪২ হাজার টাকা ও আট আনা ওজনের স্বর্ণালংকার, দুটি মুঠোফোন তার ছেলে-মেয়েদের সার্টিফেকট, জন্ম নিবন্ধনের কাগজপত্র ও ইসলামি ব্যাংকে লেনদেনের কাগজপত্র প্রভৃতি নিয়ে যান। এসময় তার ছেলে রিয়াজ উদ্দিন সার্টিফিকেট নেওয়ার কারণ জানতে চাইলে তাকেও বেশ কয়েকটি চড় থাপ্পর মারেন এবং তার মাথায় পিস্তল ঠেঁকিয়ে বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করতে হুমকি দেন।
ভোক্তভোগী গৃহবধু খালেদা আক্তার বলেন, তিনি এ ঘটনার পর থেকে পরিবার নিয়ে আতঙ্কে দিনযাপন করছেন। বিষয়টির প্রতিকার পেতে রোববার দুপুরে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। বিকালে তিনি থানায় অভিযোগের অনুলিপি জমা দিতে গেলে প্রথমে তা না নিয়ে তাকে থানা থেকে সমঝোতার প্রস্তাব দেওয়া হয়। তবে তিনি তাতে অসম্মতি জানানোর পাশাপাশি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহবুব মোরশেদ বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগ মিথ্যা। আমি ওই বাড়িতে যাই ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি গ্রেপ্তার করতে। আমাদের উপস্থিতি টের পেয়ে আসামি পেছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে যায়। আমরাও তাকে ধাওয়া করি। তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিতে ছায়াতদন্ত করে দেখতে বলেন। পরোয়ানাভুক্ত আসামি ধরতে গিয়ে যদি এ রকম ষড়যন্ত্রের শিকার হতে হয়, তাহলে আর চাকরি করা যাবে না।
সীতাকুণ্ড সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) মো.আশরাফুল করিম জানান, অভিযুক্ত উপপরিদর্শক (এস আই) মাহবুব মোরশেদকে সীতাকুণ্ড থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।
- Advertisement -
spot_img

অন্যান্য সংবাদ সমূহ

Check out other tags:

জনপ্রিয় সংবাদ স্মূহঃ